1. admin@dipanchalnews.com : dipanchalAd :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০১:৫২ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
বরগুনা হাসপাতালের হলরুমের সিলিং ডেকারেশন ধ্বসে ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ প্রায় অর্ধকোটি টাকা আজ শেষ হচ্ছে ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচন তালতলীতে ভোটগ্রহণ শুরু,নারী ভোটারের দীর্ঘ লাইন বরগুনায় উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির কৌশল বিষয়ক প্রশিক্ষণের উদ্বোধন বরগুনায় চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিলেন মৌলভী কাওসার মাহমুদ (সুজন) ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচন: বামনায় মনোনয়ন পত্র দাখিল করলেন-১৩ জন বামনায় শ্রেষ্ঠ শ্রেণী শিক্ষক নির্বাচিত হলেন প্রভাষক জাকির হোসাইন মানবিক বরগুনা ও রক্তদান সংগঠন ইসলামী ব্লাড ফাউন্ডেশনের এর পক্ষ থেকে ঠান্ডা শরবত ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালিত মানবতার সেবায়, মানুষের পাশে বরগুনার এসএসসি ব্যাচ-২০০৬ বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উপলক্ষ্যে দেশবাসীকে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

আমতলীতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধেধর্ষন চেষ্টার অভিযোগে মামলা, তদন্তের নির্দেশ

  • Update Time : বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৩৬ Time View

আমতলী প্রতিনিধি: আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বুধবার সকালে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে। মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পুলিশ পরিদর্শককে ৭ দিনের মধ্যে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ টেপুরা গ্রামের সিদ্দিক মাদবরের স্ত্রী নিলিমা আকতারকে বাড়িতে একা পেয়ে গত ১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেল ৪টার সময় হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ও তার ৩ সহযোগি নিয়ে ওই গৃহবধূকে ধর্ষন চেষ্টা চালায়। ধর্ষনে ব্যার্থ হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান তার সহযোগী বাহাদুর মল্লিক, সোহেল মল্লিক ও হানিফ প্যাদার সহযোগিতায় গৃহবধূ নিলিমাকে ব্যাপক মারধর করে রক্তাত্ব জখম করে। এসময় তার ডাক চিৎকার শুনে স্বামী সিদ্দিক মাদবর স্ত্রীকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে। এক পর্যায়ে স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে অফিস বাজারের মতি মাদবরের দোকানের সামনে বসে দ্বিতীয় দফা মারধর করে এবং পুলিশকে না জানাতে শাসিয়ে যায় এবং চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতেও বাধা দেয়। পরে ওই দিন গভীর রাতে চেয়ারম্যানের চোখ ফাকি দিয়ে পটুয়াখালী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

এঘটনায় ভিকটিম নিলিমা আকতার চিকিৎসা শেষে বুধবার সকাল ১০টায় বরগুনার নারী ও নির্যাতন দমন ট্রাইব্যনালে ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ও তার ৩ সহযোগি বাহাদুর মল্লিক, সোহেল মল্লিক ও হানিফ প্যাদার বিরুদ্ধে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আমলে নিয়ে বিজ্ঞ বিচারক মো. মশিউর রহমান খান বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পুলিশ পরিদর্শক মো. কালাম খানকে তদন্ত করে ৭দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

বরগুনা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পাবলিক রিলেশন অফিসার পুলিশ পরিদর্শক মো. কালাম খান বলেন, আদালতের নির্দেশ এখনো হাতে পাইনি। হাতে পাওয়া গেলে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করা হবে। ভিকটিম নিলিমা আকতার অভিযোগ করে বলেন, হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রায় আমাকে উত্যাক্ত করত। গত মঙ্গলবার আমাকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষনের চেষ্টা চালায় না পেরে আমাকে মারধর করে গুরুতর জখম করে। আমার স্বামী রক্ষার জন্য এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করে। এমনকি আহত অবস্থায় আমাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালেও নিেতেও দেয়নি। এবং পুলিশকেও না জানাতে শাসায়। এঘটনার আমি বিচার চাই। অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন ওই নারীকে আমি চিনি না। তার স্বামী একজন মাদক বিক্রেতা তার বিচার করায় আমার নামে এ মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী শাখয়াত হোসেন তপু বলেন, বিষয়টি আমার জনা নেই। আদালতের নির্দেশনা অনুয়ায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme