1. admin@dipanchalnews.com : dipanchalAd :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে বরগুনায় সংবাদ সম্মেলন বরগুনার নব নির্বাচিত সাংসদ টুকুকে সংবর্ধনা দিলেন কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নবাসী বামনায় চেয়ারম্যানের মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন তালতলীতে অবৈধ ক্লিনিক পরিচালনার দায়ে ১ মাসের কারাদণ্ড বরগুনার অনিবন্ধিত ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধের নোটিশ নির্বাচনী পোষ্টার, ব্যানার, ফেস্টুন শহরের সৌন্দর্য নষ্ট করছে বামনায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ বরগুনায় স্টার হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টের সুনাম নষ্ট করতে মরা মুরগী বিক্রির ভিডিও তৈরী করা হয় মোটরসাইকেল চলাচলে নতুন নীতিমালা পাটুরিয়া ঘাটে ডুবে যাওয়া ফেরির একটি কাভার্ড ভ্যান উদ্ধার

কুয়াকাটায় সাগরে নিখোঁজ দুই ছেলেরসন্ধানে দিশেহারা বাহাউদ্দীন

  • Update Time : বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০২৩
  • ২৮ Time View

এইচ এম হুমায়ুন কবির, কুয়াকাটা থেকে: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় আশাখালী মোহনা থেকে গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে যায় এমভি রকমাতুল্লাহ নামের একটি ট্রলার। সেই ট্রলারে ছিলেন সাত মাঝিমাল্লা। কিন্তু সমুদ্রে যাওয়ার দুদিনের মাথায় বঙ্গোপসাগরে উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় মিধিলি। এ বৈরী আবহাওয়ায় দুর্ঘটনার কবলে ট্রলারটি। ছয় দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত সাত জনের কারোই সন্ধান মেলেনি।

নিখোঁজরা হলেন— পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার মৌডুবি এলাকার কাজীকান্ধা গ্রামের বাহাউদ্দিনের ছেলে ওই ট্রলারের মাঝি তানমুন (৩৫) ও তানিম (৩০) এবং কলাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা আবু সালেহ, হৃদয়, আ.সালাম, রহমাত ও রাজিব। এদিকে দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পর থেকে তানমুন ও তানিমের সন্ধানে দিগি্বদিক ছুটছেন তাদের বাবা বাহাউদ্দিন। খুলনা, বাগেরহাটের মোংলা ও সুন্দরবনসহ বিভিন্ন স্থানে খুঁজেও সন্ধান না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তিনি।

ছেলেদের খোঁজে ক্লান্ত বাহাউদ্দিন বলেন, আমরা জেলে, মাছ ধরে খাই। ছেলে দুইটা নিখোঁজ তাদের পাচ্ছি না। তারা ছাড়া পরিবারকে দেখার মতো কেউ নেই। ছোট ছেলেটির ঘরে তিন মাসের একটি ছেলে ও তিন বছরের একটি মেয়ে আছে। আর বড় ছেলেটির চার বছরের একটি ছেলে ও আট বছরের একটি মেয়ে আছে। কী বলবো তাদের সামনে গিয়ে? সন্তানদের ফিরে পেতে প্রশাসনের সহযোগিতা চাই। ট্রলারের মালিক মো. রকমাতুল্লাহ বলেন, শুক্রবার যখন ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে তখন ট্রলারটি তীরে ফিরছিল। হঠাৎ ঢেউয়ের কবলে সমুদ্রে দুর্ঘনার শিকার হয়। তাদের কাছ থেকে ফিরে আসা অন্য ট্রলার চেষ্টা করেও উদ্ধার করতে পারেনি। আমরা খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অন্য ট্রলার পাঠাই। কিন্তু সেখানে গিয়ে কিছুই পাইনি। এরপর আমরা নৌ পুলিশ, থানা পুলিশ এবং কোস্টগার্ডকে জানিয়েছি। আমরা এখনো তাদের সন্ধানে সমুদ্র এলাকা চষে বেড়াচ্ছি। নিজামপুর কোস্টগার্ডের কন্টিজেন্টাল কমান্ডার এম বাদল মিয়া বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের পর পরই আমাদের বিভিন্ন টিম বিশেষ করে নিজামপুর, রাঙ্গাবালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সুন্দরবন ও মোংলাসহ উপকূলীয় এলাকা ও গভীর সমুদ্রে অভিযান চালাচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme